বাংলাদেশের সকল সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার নিয়ম

আজকে আপনারা আমাদের আর্টিকেলে বাংলাদেশের সকল সিম থেকে 

ইমারজেন্সি ব্যালেন্স কিভাবে নিতে হয় ,

এই বিষয় সর্ম্পকে বিস্তারিত জানতে পারবেন।  

 

Photo By Unplash 

 

অনেক সময় দেখা যায় যে ইমারজেন্সি লোন নেওয়ার দরকার পড়ে অর্থাৎ,  সিম থেকে ব্যালেন্স ধার নেওয়ার দরকার পড়ে তখন যদি এই বিষয়টা আপনারা জানেন যে কিভাবে একটা সিম থেকে ব্যালেন্স ধার আনতে হয় তাহলে কিন্তু তাদেরকে বিভিন্ন সমস্যার ভিতরে পড়তে হয়। 

{tocify} $title={Table of Contents}

 

আর তাই আজকে আমি আপনাদেরকে শেখাবো যে কিভাবে আপনারা আপনাদের সিম থেকে ব্যালেন্স ধার আনতে পারবেন ব্যালেন্স লোন আনতে পারবেন অথবা ইমারজেন্সি লোন কিভাবে আনতে পারবেন , সে সম্পর্কে আজকে আলোচনা করা হবে আমাদের  আর্টিকেলে।  

গ্রামীণফোনঃ 

বাংলাদেশের ভেতরেসবথেকেবড়সিমকোম্পানি গ্রামীণফোন আরএটাদিয়েইআজকেশুরুকরাযাক 

গ্রামীণফোনের ইমার্জেন্সি  ব্যালেন্স নেওয়ার নিয়ম  

কত টাকা নিতে পারবেন  গ্রামীণফোনেঃ

সর্বনিম্ন ১১টাকাথেকেশুরুকরেআপনারাসর্বোচ্চ 200 টাকাপর্যন্ত নিতেপারবেনখুবসহজে তবে আপনাকে যেগ্রামীণফোন সিমকোম্পানি ব্যালেন্স ধারদেবেসেটাকিন্তুসম্পূর্ণ আপনারসিমব্যবহারের উপরসম্পূর্ণ নির্ভরশীল 

যত বেশি টাকা আপনারা আপনাদের সিমে রিচার্জ করবেন তত বেশি টাকা আপনারা লোন আনতে পারবেন অর্থাৎ ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন  

গ্রামীণফোনে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স আনার কোডঃ 

ব্যালেন্স ধার নেওয়ার  জন্য আপনাদেরকে আপনাদের মোবাইলফোনেরডায়ালঅপশনেগিয়ে  *121*1*3# ডায়ালকরতেহবে এরপরে ব্যালেন্স দেখারজন্যআপনাদেরকে ডায়ালকরতেহবে*121*1*2# এইকোডটিলিখে। gp emergency balance code

 

 

আপনারাকতটাকাপাবেনতারজন্যআপনাদেরকে ডায়ালকরতেহবে*121*1010*2# , এইকোডনাম্বারটি লিখে

 

কীভাবে টাকা পরিশোধ করে দিতে পারবেন

 

এই বিষয়টা নিয়ে আপনাদের কোনো চিন্তা করা লাগবে না কারণ আপনাদেরকে কোন কোড ডায়াল করে কিন্তু আপনাদের ব্যালেন্স পরিশোধ করা লাগবে না আপনারা যদি আপনাদের সিমের টাকা লোড করবেন বা ফ্লেক্সিলোড করবেনঅর্থাৎ, যখন আপনারা আপনাদের ধার নেওয়া  সিমের ভিতরে টাকা ভরবেন তখনই কিন্তুআপনাদের সিম থেকে টাকা কেটে নেওয়া হবে অটোমেটিক  ভাবে। পরিশোধ করে দেওয়ার পরে কিন্তু চাইলে আপনারা আবার এই একই উপায়ে আবার আর নিতে পারবেন দরকার হলে আপনাদের। 

বাংলালিংকঃ 

বাংলালিংক সিম যারা ব্যাবহার করেন তারা সকলেই নিতে পারবেন এই সুবিধাটি , 

(সকল ধরনের  প্রিপেইড    কল অ্যান্ড কন্ট্রোল গ্রাহকগণ  যারা রয়েছেন তারা   (যাদের ব্যালেন্স 30 টাকার কম তারা  অবশ্যই পাবেন 

আর আগে থেকে যদি আপনারা নিয়ে থাকেন ব্যালেন্স তা  হলে আপনাদেরকে সেই ব্যালেন্সের  টাকা পরিশোধ করতে হবে,  তারপরই আপনারা পুনরায় ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন 

কত টাকা নিতে পারবেন 

বাংলালিংক সিমে  ১০ টাকা হতে শুরু করে  ২০০ টাকা পর্যন্ত দিয়ে থাকে তবে এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনাদের মোবাইল রিচার্জের উপর আপনারা যত বেশি পরিমাণে মোবাইল রিচার্জ করবেন তত বেশি পরিমাণে আপনাদেরকে ইমারজেন্সি লোন দেওয়া হবে  

বাংলালিংক সিমে ব্যালেন্স পাওয়ার কোড 

লোন পেতে হলে আপনাদেরকে যে কাজটি করতে হবে সেটা হলো আপনাদের মোবাইল ফোনে ডায়াল অপশনে গিয়ে ডায়াল করতে হবে *874#  এই কোডটি ১০টাকা  যদি পেতে চান তাহলে সেক্ষেত্রে আপনাদেরকে  *874*10# ডায়াল  করা লাগবে

আপনারা ব্যালেন্স পাওয়ার যোগ্য কিনা সেটা কিভাবে জানবেন সেটা জানার জন্য আপনাদেরকে মোবাইল ফোনের ডায়াল  অপশনে  গিয়ে *874*9# ডায়াল  করা লাগবে  Banglalink emergency balance

 

ব্যালেন্সে  কত টাকা আপনারা পেয়েছেন বা আপনার থেকে কত টাকা দেয়া হলো সেটা জানার জন্য আপনাদেরকে *874*0# ডায়াল  করা লাগবে। 

ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পরিশোধ  কিভাবে করব 

আপনাদের ধার নেওয়া অথাৎ আপনারা যে সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স আনবেন সেই সিমে যখন আপনারা ফ্লেক্সিলোড করবেন বা টাকা ভরবেন  সাথে সাথেই আপনাদের ব্যালেন্সে যে কয় টাকা ধার এনেছিলেন সেই কয় টাকা কেটে নেওয়া হবে

পরিষদ করে দেওয়ার পরে আপনারা চাইলে আবারো একই পদ্ধতিতে পুনরায় ইমারজেন্সি ব্যালেন্স  আনতে পারবেন  

এয়ারটেলঃ 

কারা এয়ারটেল সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাবেন

() এয়ারটেল সিমের সকল  প্রিপেইড গ্রাহক যারা রয়েছেন তারা  (আর আপনার যদি আগে থেকে নিয়ে  থাকেন তাহলে সে ক্ষেত্রে সেই ব্যালেন্সে টাকা আপনাদেরকে সবার প্রথমে পরিশোধ করতে হবে তারপরে আপনারা পুনরায় একই পদ্ধতিতে নিতে পারবেন   

কত টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন 

এয়ারটেল সিমে  আপনারা 12 টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ  ১০০ টাকা পর্যন্ত  পেয়ে যেতে পারেন  তবে এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে যে আপনারা আপনাদের সিমে কি পরিমানে টাকা রিচার্জ করেছেন তার উপরেAirtel emergency balance code

 

 

অর্থাৎ,  যারা বেশি পরিমাণে টাকা সিমে ফ্লেক্সিলোড করে তাদেরকে বেশি পরিমাণ টাকা দেওয়া হয়ে থাকে  মানে আপনারা যদি আপনাদের সিমে বেশি টাকা রিচার্জ করেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনারা বেশি টাকা লোন নিতে পারবেন ব্যাপারটা এরকম  

এয়ারটেলে ব্যালেন্স পাওয়ার কোডঃ

আপনাদের সবার প্রথমে মোবাইল ফোনের ডায়াল করতে হবে *141#  এই কোডটি ডায়াল করে আপনারা ব্যালেন্স নিতে পারবেন  

তারপরে  আপনারা  *1#  ডায়াল করে খুব সহজেই আপনাদের মোবাইল ফোনের ব্যালেন্স চেক করে নিতে পারবেন  

কীভাবে পরিশোধ  করতে পারবেন ? 

এই বিষয় নিয়ে চিন্তা করার কোনো কারণ নেই , কারণ আপনারা যখন আপনাদের সিমে টাকা রিচার্জ করবেন তখনই সাথে সাথে আপনাদের সিম থেকে আপনাদের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স যে পরিমাণে টাকাটা দিয়েছিল সেই টাকাটা কেটে নেওয়া হবে 

আর আপনারা যদি সেই টাকাটা পরিশোধ করে দেন তা হলে পরবর্তীতে যদি আপনাদের কোন সময়  ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর দরকার হয়ে থাকে তা হলে কিন্তু তখন সে সময় আপনারা নিতে পারবেন  

রবিঃ 

কারা রবিতে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাবেন 

() রবি সিমের সকল  প্রিপেইড গ্রাহক () আগে  যারা লোন নিয়েছিলেন তারা যদি লোন পরিশোধ করে থাকেন তাহলে কিন্তু খুব সহজেই আপনারা ইমারজেন্সি লোন নিতে পারবেন   Robi emergency balance code

 

কত টাকা  নিতে পারবেন 

১০ টাকা থেকে শুরু করে আপনারা সর্বোচ্চ হলে ১০০টাকা পর্যন্ত  পেয়ে যাবেন খুব সহজে। আপনারা যত বেশি পরিমাণে আপনাদের সিমে রিচার্জ করবেন তত বেশি পরিমাণে আপনাদের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে   

রবির  সিমে ব্যালেন্স পাওয়ার কোড

*8# ডায়াল করলে আপনারা জানতে পারবেন যে আপনারা আপনাদের সিমে লোন পাওয়ার যোগ্য কিনা  (এটি 8 আট ইংরেজিতে  বাংলার না ) লোড নিতে হলে আপনাদেরকে *123*007# ডায়াল  করা লাগবে    টাকা চেক করতে হলে আপনাদেরকে*1#  কিংবা *222# ডায়াল  করা লাগবে। রবি ৩৪৯ টাকায় ৩০ জিবি কোড

 

খরচ করার পর আপনাদের সিমে কত টাকা রয়েছে সেটা চেক করতে যদি চান তাহলে আপনাদেরকে *8# ডায়াল করে অ্যাকাউন্ট মেনু  হতে  1 চাপলে টাকা  দেখতে পারবেন।  

পরিশোধ করার পদ্ধতি 

আপনারা যখন আপনাদের সিমে পরে রিচার্জ করবেন তখন কিন্তু সাথে সাথে আপনাদের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স যে টাকা দিয়েছিল সেই টাকাটা কেটে নেওয়া হবে 

টাকা পরিশোধ করার পরে যদি আপনারা নতুন ভাবে আবার লোন নিতে চান তাহলে কিন্তু সেটা নিতে পারবেন কিন্তু সেজন্য  আপনাদেরকে আগে যে টাকাটা লোনআনবেন সেই  টাকাটা পরিশোধ করে দিতে হবে  

টেলিটকঃ 

কারা পাবেন টেলিটক সিমের ইন্টারনেট ব্যালেন্স

() সকল ধরনের  টেলিটক  প্রিপেইড  গ্রাহক রয়েছেন তারা পাবেন  () কোন গ্রাহক যদি আগে নিয়ে থাকেন ইমারজেন্সি ব্যালেন্স তাহলে তাদেরকে সেটা পরিশোধ করতে হবে (যাদের মূল ব্যালেন্সে কোন রকমের টাকা থাকবে না  তারা  পাবেন। 

কত টাকা পেতে পারি 

সর্বনিম্ন ১০ টাকা  হতেশুরু করে  ৫০  টাকাপর্যন্ত পেয়ে যেতে পারেন কত টাকা পাবেন এটা নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব না কারণ এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনার আপনাদের সিমে কত টাকা রিচার্জ করবেন তার উপরে,

আপনারা যত বেশি পরিমাণে রিচার্জ করবেন তত বেশি পরিমাণে আপনাদের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার চান্স বেশি থাকবে তবে সর্বোচ্চ আপনারা 50 টাকার মত পেতে পারেন  

টেলিটকে ব্যালেন্স পাওয়ার কোড কি

লোন নিতে হলে আপনাদেরকে *1122# ডায়াল  করা লাগবে কিংবা Loan লিখে 1122 নম্বরে  মেসেজ পাঠিয়ে দিলেই আপনারা পেয়ে যাবেন যত টাকা নিতে চান তাদেরকে এভাবেই করে লিখতে হবে। *1122*10# এর জন্য আপনাদেরকে ১০টাকা পেয়ে যাবেন 

*1122*12#  এইভাবে আপনারা  ১২ টাকা  পাবেন *1122*20#  আর যদি এইভাবে লিখেন তাহলে আপনারা ২০ টাকা  পাবেন *1122*30# এরকমের করে লিখলে ৩০ টাকা  পাবেন 

*1122*40#  অথবা যদি  এইভাবে লিখেন তাহলে আপনারা  ৪০ টাকা  পেয়ে যাবেন *1122*50#  এভাবে লিখলে আপনারা  ৫০ টাকা পর্যন্ত খুব সহজেই পেয়ে যাবেন    সম্পর্কে যদি আপনারা জানতে চান তাহলে আপনাদেরকে আপনাদের মোবাইল ফোনের  ডায়াল করার অপশন গিয়ে  *1122*0# ডায়াল  করা লাগবে।  

কিভাবে পরিশোধ করবেন ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর টাকা 

আপনারা যখন পরবর্তীতে আপনাদের সিমের টাকা ফ্লেক্সি লোড করবেন তখন সাথে সাথে আপনাদের সিম থেকে টাকা কেটে নেওয়া হবে  অর্থাৎ  টেলিটক কোম্পানি থেকে আপনাদের কাছ থেকে টাকা কেটে নিবে আপনাদের টাকা রিচার্জ করার সঙ্গে সঙ্গে। 

পরিশোধ করে দেওয়ার সাথে সাথে আপনারা চাইলে আবার ইমারজেন্সি ব্যালেন্স  বা লোন নিতে পারবেন

Skitto: 

গ্রামীণফোন সিমের আরও একটা সার্ভিস হলো Skitto তারাও  কিন্তু একই রকমের সার্ভিস দিয়ে থাকে  

Skitto তে ইমার্জেন্সি  ব্যালেন্স কিভাবে পাবেন

Skitto সিম ব্যবহারকীরা মূল ব্যালেন্স   টাকার যদি কম থাকে তাহলে তারা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবে   

কত টাকা নিতে পারবেন ? কতদিন থাকবেএই টাকা দিয়ে কি করতে পারবেন? 

আপনারা সর্বমোট 5 টাকা পাবেন মেয়াদ থাকবে  ৩০দিন  আরআপনারা এই  টাকা দিয়ে ফোন কল ইন্টারনেট  এসএমএস কিনে নিতে পারবেন 

যারা skitto ব্যবহার করেন  তারা আশা করি জানেন যে অ্যাপসের মাধ্যমে সমস্ত কাজগুলো করা যায়  

ব্যালেন্স পাওয়ার জন্য আপনাদেরকে Skitto  অ্যাপসটি ওপেন করতে হবে।  মেনুবার থেকে আপনাদেরকে তারপরে emergency loan  অপশনটি সিলেক্ট করে নিতে হবে  

তারপরে আপনাদেরকে Get 5 Tk প্রেস  করারপরেই  টাকা  খুবসহজে পেয়ে যাবেন অ্যাপসের মাধ্যমে আপনারা ব্যালেন্স দেখে নিতে পারবেন খুব সহজে 

পরবর্তীতে রিচার্জ  করার পরে আপনাদের কাছ থেকে Loan ফেরত  নিয়ে নেওয়া হবে পরিশোধ করে দেওয়ার পরে আপনারা চাইলে আবারো পরবর্তীতে একই পদ্ধতিতে নিতে পারবেন  

পরিশেষে  

তাহলে আজকে আমাদের আর্টিকেলে বাংলাদেশের 6 টি সিম কোম্পানি সম্পর্কে জানতে পারলাম এবং  এই সিমগুলো থেকে আপনারা কিভাবে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স বা  লোন  নিতে পারেন সেই বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করলাম

আশা করি আজকের আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনারা অনেক কিছু জানতে পেরেছেন , লেখাটি অবশ্যই আপনার বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়স্বজনদের সাথে শেয়ার করে দিবেন যাতে করে তারাও এই বিষয়গুলো সম্পর্কে জেনে এই সুবিধা গুলো উপভোগ করতে পারে  তথ্যসূত্রTechzoombd

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *