পাগলিটা মা হলেন, বাবা হলো না কেউ

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে মানসিক ভারসাম্যহীন এক তরুণীর সন্তান প্রসব করেছেন। রবিবার (২২ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কয়েকজন কর্মকর্তা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ নুরুল হক জানান, বিকেলে মহাসড়কে অজ্ঞাতপরিচয় এক তরুণীর প্রসব ব্যথা ওঠে।

এই সময় আশেপাশে অবস্থান করছিলেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের যুগ্ম সচিব জাকিয়া পারভীন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ডা. বদিউজ্জামান ও আসিফ ইকবালসহ কয়েকজন চিকিৎসক। তারা সেখানে ছুটে গিয়ে মহাসড়কে কাপড় টাঙিয়ে ওই তরুণীর ছেলে সন্তান প্রসব করিয়েছেন।

নবজাতকের ওজন হয়েছে দুই কেজি ৩০০ গ্রাম। মা ও নবজাতককে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শেষে মেয়েটিকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়েটির বয়স ২৫ কিংবা ২৬ বছর। বিয়ে হয়নি। অথচ সেই ‘পাগলি’ মা হয়েছেন। কার পাশবিকতার শিকার মেয়েটি? কিন্তু তার সন্তানের কি হবে? কে দায়িত্ব নেবে নবজাতকটির? এখন এসব নিয়ে আলোচনা করছেন সমাজের লোকজন। মেয়েটির পরিচয় জানা যায়নি। কোথায় বাড়ি, কে তার আপনজন, কিছুই বলতে পারছেন না তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *