ঘুম থেকে উঠে যে কাজগুলো করলেই শরীরের মারাত্মক ক্ষতি

নতুন বছরে সুস্থ শরীর পেতে চাইলে বদলে ফেলুন কিছু অভ্যাস। কারণ এই অভ্যাসগুলো আপনার শরীরকে খারাপ করছে। গত দু’বছরে কোভিডের কারণে আমার জীবনযাত্রা অনেকখানি বদলে গিয়েছে। বাড়ি থেকে কাজ করার কারণে অনেকেরই নানা রোগের দেখা দিয়েছে। মানুষ অনেক বেশি করে ডিজিটাল মাধ্যমের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন। এই অবস্থায় সুস্থ থাকার জন্য কয়েকটা নিয়ম মেনে চলা খুব জরুরি। এর মধ্যে রয়েছে, ঘুম ভাঙার পরেই কী কী করবেন না-তার তালিকা। দেখে নেওয়া যাক সেই তালিকায় কী কী আছে।

মোবাইল ফোন অ্যালার্মের স্নুজ বোতামে চাপ:অ্যালার্ম দিয়ে ঘুমোতে যাচ্ছেন। ঘুম ভাঙার সময়ে অ্যালার্ম একবার করে বাজছে। আর আপনিও স্নুজ বোতাম টিপে তা থামিয়ে আবার ঘুমোচ্ছেন। স্নুজ টিপে দেওয়ার কয়েক মিনিট পরে ফোন আবার বাজছে। আপনি ভাবছেন, এতে আরও বেশি ঘুমোচ্ছেন। আসলে তা নয়। বারবার এভাবে ঘুম ভাঙলে ক্লান্তি বাড়ে।

ঘুম থেকে উঠেই কফি:
ঘুম থেকে উঠেই কফি খাচ্ছেন? এটাও সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। এতে মনখারাপ হওয়া থেকে মেজাজ বিগড়ে যাওয়ার মতো সমস্যা হতে পারে। ঘুম ভাঙার পরে অন্তত আধ ঘণ্টা কাটতে দিন। তার পরে কফি খান।

সকালের নাস্তা বাদ:
কাজের তাড়ায় সকালের নাস্তা বাদ দিচ্ছেন মাঝেমধ্যেই? এটাও ভয়ানক বিপদ ডেকে আনতে পারে। মেদ বেড়ে যাওয়া থেকে শুরু করে, ডায়াবিটিস ও হৃদরোগের আশঙ্কা বেড়ে যেতে পারে নিয়মিত সকালের নাস্তা না খেলে।

নড়াচড়া নেই:
সকাল থেকেই কি বসে বসে কাজ করে যাচ্ছেন? এটাও শরীরের মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে। হাড় দুর্বল হয়ে যেতে পারে এর ফলে। শ্বাসকষ্ট, হাড় দুর্বল হয়ে যাওয়া, অবসাদ বেড়ে যাওয়া থেকে বিভিন্ন ধরনের ক্যানসারের আশঙ্কা পর্যন্ত বাড়ে এতে।

পানি খাচ্ছেন না:
সকালে খালি পেটে পানি পান করছেন? সেটা না করলেও বিপদ। কারণ মাথাধরা, কোষ্ঠকাঠিন্য, রক্তচাপ কমে যাওয়া, চোখের সমস্যার মতো নানা ধরনের ক্ষতি হতে পারে এর ফলে। তাই সকালে খালি পেটেই এক গ্লাস পানি পান করুন।

ধূমপান:
সকালে খালি পেটে ধূমপান করছেন কি? জেনে রাখবেন, এটা সবচেয়ে ভয়ঙ্কর। এমনিতেই ধূমপান মারাত্মক ক্ষতিকারক। তার ওপর ঘুম থেকে উঠেই ধূমপান আরও বেশি ক্ষতি করে। এতে হজমক্ষমতা কমে যায়, হৃদরোগ, ক্যানসারের হার বহু গুণ বেড়ে যায়।

ফোন ঘাঁটা:
স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে ৮০ শতাংশই সকালে ঘুম থেকে ওঠার ১৫ মিনিটের মধ্যে ফোন ঘাঁটতে শুরু করেন। পরিসংখ্যান বলছে, যাদের এই অভ্যাস আছে, তাদের কর্মক্ষমতা মারাত্মকভাবে কমে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *